RezwanAhmed & His Team || Software Engineer

Speech of Dr. Kamal Hossain about Arrested by Security force

Speech of Dr. Kamal Hossain about Arrested by Security force


‘সাদাপোশাক পরে কাউকে ধরার কোনো বিধান নেই। কাউকে ধরতে হলে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকতে হবে, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আদালতে হাজির করতে হবে।

কিন্তু এসব না করে আইন অমান্য করা হচ্ছে। নিয়মিত আইন অমান্য করে সরকার সংবিধানকে অমান্য করছে।’

— ড. কামাল হোসেন
বাংলাদেশের সংবিধান প্রণেতাদের মধ্যে অন্যতম।

সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল বলেন, ‘প্রজাতন্ত্রের সকল ক্ষমতার মালিক জনগণ, সংবিধানের এই ঘোষণার সঙ্গে বাক, ব্যক্তি, সংবাদপত্র ও সমাবেশের স্বাধীনতা এবং অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের ধারণা ওতপ্রোতভাবে জড়িত। অবাধ নির্বাচন নিশ্চিত করাই হলো জনগণের মালিকানা নিশ্চিত হওয়া। তবে আমরা অত্যন্ত উৎকণ্ঠার সঙ্গে লক্ষ করছি, ক্ষুদ্র রাজনৈতিক স্বার্থে নির্বিচারে গ্রেপ্তার, গায়েবি ও হয়রানিমূলক হাজার হাজার মামলা দায়ের, নির্যাতন, বিচারবহির্ভূত প্রাণনাশ এবং অন্যান্য বহুবিধ অন্যায় ও অবিচার ঘটে চলছে। এসব অনতিবিলম্বে বন্ধ করার ব্যাপারে সরকারের আশু ও কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা জরুরি হয়ে পড়েছে। কারণ অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য এটা অন্যতম ও অবিচ্ছেদ্য পূর্বশর্ত।’

‘গণতন্ত্রকে বলা হয় আর্ট অব কম্প্রোমাইজ। বাংলাদেশের বিরোধপূর্ণ রাজনৈতিক ইতিহাসে সংলাপ আনুষ্ঠানিকভাবে সফল না হলেও বিভিন্ন সময়ে জাতীয় স্বার্থে সমঝোতা বা একটা আপসমূলক অবস্থায় পৌঁছানোর নজির আমাদের আছে।

জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের একজন ডঃ কামাল হোসেন। শেষ বয়সে এসেও তিনি গণতন্ত্রের জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করছেন। অসম্ভব মেধা ও প্রজ্ঞার পরিচয় পাওয়া যায় তার প্রস্তাবনায়। আফসোস আওয়ামী লীগ এই প্রস্তাব মানবে না । কারণ তাদের কাছে দেশের ভালোর চেয়ে ক্ষমতায় থাকা বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

Advertisements