RezwanAhmed & His Team || Software Engineer

Posts tagged “Holy Ashura

Holy Ashura and the Respected Death of Imam Husayn


10th Muharram is the very Important Historic day in the Muslim World. In Quran say that on this Arabic first month 10th Muharram day Allah created this world, and will destroy the Earth. Allaah accepted all dua requested of the Muslim.

Many things happened and will be happening on this 10th Muharram.

So, every Muslim always try to pray to their creator Allah more and more on this 10th Muhraam, Arabic 1st month.

The events of Karbala reflect the collision of the good versus the evil, the virtuous versus the wicked, and the collision of Imam Husayn (the head of virtue) versus Yazid (the head of impiety). Al-Husayn was a revolutionary person, a righteous man, the religious authority, the Imam of Muslim Ummah.

Finally, the day of Ashuraa dawned upon the soil of Karbala. It was the day when Jihad would be in full bloom, blood would be shed, 72 innocent lives would be sacrificed, and a decisive battle would be won to save Islam and the Ummah.

Lessons from the Tragedy of Karbala

Karbala is the cruelest tragedy humanity has ever seen. Yet, the startling (though appalling) events in Karbala proved like a powerful volcano that shook the very foundation of Muslims, it stirred their consciousness, ignorant or learned alike. For sincere Muslims, Karbala turned into a triumph. The tragic event became the very beacon of light to always remind Muslims to practice Islam honestly and sincerely, to do what is right irrespective of consequences, and fear no one except Allah (swt).

On the other hand, Yazid never achieved what he and his father had planned to achieve, for within three years, Allah’s wrath fell upon him, causing him to die at the age of 33 years. And within a few decades the rule of Bani Umayya crumbled and came to an end.

The tragedy of Karbala taught humanity a lesson that standing for the truth and fighting unto death for it is more honorable and valuable than submitting to the wrongful, especially when the survival of Islam is at stake.

Advertisements

Holy Ashura’-first Month of the Muslim Lunar Calendar


Holy Ashura

10th of Muharram, first month of the Muslim lunar calendar in the world.
On this day, 10th Muharram in the Hijri year 61, Hazrat Imam Hossain (RA) was entrapped by Yazid’s forces, embraced martyrdom in Karbala after battling for long hours. About 1332 years back, Great Prophet Hazrat Muhammad (PBUH)’s grandson Imam Hossain (RA) had to make the supreme sacrifice to uphold the spirit of Islam.

10547495_10154821853385249_6209810413025695977_n
Why Important‬ Ashura‬ – In Holy Al-Qur’an says that In this Day -Earth’s first person Prophet Hazrat Adam (A) came in the world, Allah save prophet Hazrat Ibrahim (a) from the fire-space and, in future any day – on this 10th Muharram Holy Ashura – Powerfull Allah will destroy the ‪#‎Earth‬ through Resurrection.

পবিত্র আশুরা – মুসলিম হিজরি বছরের ১ম মাস।

ত্যাগ ও শোকের প্রতীকের পাশাপাশি বিশেষ পবিত্র দিবস হিসেবে দিনটি পালন করা হয় মুসলিম বিশ্বে।

এই দিনে কারাবালার প্রান্তে সারা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মানব – মুসলিম বিশ্বের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সঃ) নাতি হযরত ইমাম হোসেন (রঃ) ইসলামের জন্য শহীদ হন, কিন্তু জেনে রাখা ভালো পবিত্র আশুরার তাৎপর্য। হিজরি ৬১ সনের ১০ মহররম এই দিনে মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর দৌহিত্র হজরত ইমাম হোসেইন (রা.) এবং তাঁর পরিবার ও অনুসারীরা সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে যুদ্ধ করতে গিয়ে ফোরাত নদীর তীরে কারবালা প্রান্তরে ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে শহীদ হন।

এজন্য, পবিত্র কুরআনে বলা আছে –

” এই ১০ই মহরমে পৃথিবীর প্রথম মানব নবী হযরত আদম আঃ কে সৃষ্টি করেন, পৃথিবীতে আসেন, হযরত ইব্রাহীম আঃ আল্লাহ্‌ অগ্নিকুণ্ড থেকে রক্ষা করেন, এমন আরও অনেক ঘটনা ঘটেছিল কিন্তু এমন কোন এক – ১০ই মহরমের দিনই পৃথিবীর শেষ দিন, এই ১০ই মহরমে মহান আল্লাহ কিয়ামতের মাধ্যমে পৃথিবী ধ্বংস করবেন। ” এই পবিত্র আশুরার আগের ৩দিন আর পরের ৪দিনে সর্বমোট ৭ দিনে পৃথিবী সৃষ্টি হয়, আর আল্লাহ্‌ এমন পবিত্র আশুরার দিনে পৃথিবী ধ্বংস করে দিবেন । 

এই ১০ই মহরমে মহান ক্ষমতাবান, এই পৃথিবীর মালিক আল্লাহ্‌ আদম (আঃ) এর দোয়া কবুল করেন, হজরত নূহ (আঃ) তুফান থেকে মুক্তি পেয়ে থাকেন, হজরত আইয়ুব (আঃ) রোগ থেকে মুক্তি পান, আর আল্লাহ্‌ ফেরাউন-কে পানিতে ডুবিয়ে মারেন।