A Brand Name ||Official Url :: Software UI Designer| Contents Designer | OS | W€B | Server | Programming | Computing Technology ::

free Internet

free Internet


ফ্রি ইন্টারনেট !!!

ফ্রি শব্দটার দুটো অর্থ হয় – একটি হচ্ছে বিনামূল্যে, আর একটি হচ্ছে স্বাধীনভাবে ব্যবহার করা।

আমাদের বাংলাদেশে রবি মোবাইল অপারেটর জেনেশুনে ভুল বিজ্ঞাপন প্রচার করছে, আর মানুষকে প্রতারিত করছে – ফ্রি ইন্টারনেট ফর ডিজিটাল বাংলাদেশ। অবশ্যই এটা মহাভুল।

— রবি আজিয়াটার মত একটা মোবাইল ফোন অপারেটরে অনেক বিশেষজ্ঞ থাকলেও কিভাবে এমন একটা ভুল বিষয় মানুষকে বুঝাচ্ছে। বাস্তবিক ফ্রি ইন্টারনেট বলে বাংলাদেশে নেই। তার মানে রবি মিথ্যা কথা বলছে, বলতেই পারে। আর তারা তো বলেই দিয়েছে – নির্দিষ্ট কিছু ওয়েবসাইট ফ্রি ব্রাউজ করা যাবে।

ইন্টারনেট নিয়ে জরিপ প্রতিষ্ঠান – Netcraft এর প্রতিবেদনে – সারা বিশ্বে প্রায় ২ বিলিয়নের বেশি ওয়েবসাইট আছে। তার মাঝে মাত্র ২৪টি ওয়েব সাইট ভিজিট করা যাবে, তাও আবার সোশ্যাল পেইজ ফেইসবুকের তৈরি নিজস্ব স্যাটেলাইট internet.org একসেসের মাধ্যমে মাত্র নির্দিষ্ট কিছু ওয়েবপেইজ ব্যাবহার করা যাবে। এই নির্দিষ্ট ২৪টি ওয়েব একসেস করে কিভাবে ডিজিটাল বাংলাদেশ বলে স্লোগান দেয়- তা সত্যি হাস্যকর আর প্রশ্নবিদ্ধ। বস্তুত ফেসবুক তাদের প্রচার বাড়ানোর জন্য এমন উদ্যোগ নেয়। কিন্তু তা ফ্রি ইন্টারনেট এর আওতায় পড়ে না। আজিয়াটার রবি, সোশ্যাল পেইজ ফেসবুক এর সাথে বিজনেস চুক্তির মাঝে ফেসবুক আর বিশেষ কিছু ওয়েব ভিজিট করা যাবে।

আর Net Neutrality বলে একটা বিষয় আছে – নিরপেক্ষ ইন্টারনেট। যা, ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারগুলো কোনো ওয়েবসাইটকে আলাদা সুবিধা দিতে পারবে না, সব ওয়েবসাইটই মুক্ত, স্বাধীন থাকবে। কেবলমাত্র ডাটা ব্যবহারের ওপর তারা বিল করতে পারবে, কোন ওয়েবসাইট ব্রাউজ করা হচ্ছে, সেটা দেখে না। মানে সবার জন্য সমান ইন্টারনেট সুবিধা।

আর রবি অপারেটর ছাড়া, বাকি সব অপারেটরের গ্রাহকরা এমন ফিচার পাবে না, তাহলে কিভাবে ফ্রি ইন্টারনেট হল – তা অনেক অবুঝও বুঝবে।
— বাংলাদেশের মানুষকে এমনভাবে বুঝানো হয়েছে যে – মুল কথা বাদ দিয়ে আংশিক কথা দিয়ে বুঝিয়ে দেয়া হয়, এখানে মাখন লাগানো আছে, খেলেই দারুন মজা কিন্তু মাখন যে রুটির মাঝে খুব বেশি নেই, আর সেই মাখনও কিছুটা ভেজাল আছে- তাও বলা হয় না।

— বাস্তবিক ফ্রি ইন্টারনেট অন্তত বাংলাদেশে নেই।
আপনি যখন বাহিরের দেশে যাবেন দেখবেন “ফ্রি ওয়াইফাই এক্সেস” বলে কিছু লেখা থাকে, সেইখানে পাসওয়ার্ড ছাড়াই বিশ্বের সব ওয়েবে ভিজিট করতে পারবেন। কিন্তু আমাদের বাংলাদেশের বিমানবন্দরে সেই সার্ভিস নেই।

আমিও বাসায় কিন্তু ফ্রি ইন্টারনেট ব্যবহার করি আমার ল্যাপটপ, মোবাইলে, স্মার্টফোনে, কিন্তু অবশ্যই এজন্য মাসে ১০০০ টাকা দিয়ে। আর আমার বাসায় পাবেন ফ্রি ইন্টারনেট, শুধুমাত্র পাসওয়ার্ড কি ব্যবহার করলেই হবে। এমনকি আমার বাসায় কোন অতিথি আসলে সে প্রয়োজনে ফ্রি ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকেন।

সুতরাং ফ্রি ইন্টারনেট বলে কিছু নেই, যদি আমাদের বাংলাদেশের বিটিআরসি – বাংলাদেশ টেলিকমুনিকেশন রেগুলারিটি অথরিটি ইন্টারনেটের কিছু ব্যান্ডউইথ ফ্রি সার্ভিস নির্দিষ্ট কিছু জায়গায় দিয়ে থাকে, তাহলে তবুও বাংলাদেশে ফ্রি ইন্টারনেট আছে বলা যাবে।

ReZwan Ahmed

B.Sc in CSE, MBAi

M.Sc of Computer Science and Engineering, Software Research Methodology (Continuing)

Advertisements