RezwanAhmed & His Team || Software Engineer

Child Abuse and Rape Scene in Bangladesh

Child Abuse and Rape Scene in Bangladesh


যখন একটি দেশের রাজনীতিদের মাঝে দুর্নীতির প্রবেশ করে, রাষ্ট্রের জনগণের ভোটাধিকার লুট করে, রাতের আধারে ভোট চুরি করে, তখন সেই দেশের রাজনীতি, অর্থনীতি, সব দিক থেকে আক্রান্ত হয়, বিশেষ করে সামাজিক অবস্থার চরম বিপর্যয় ঘটে, এসব ঘটনা ঘটবেই।

খুবই দুঃখজনক, বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর বর্তমান বাংলাদেশে ক্ষমতাসীনদের সময়ে কোন নারী এমন কি একটি শিশুও নিরাপদ নয়, যে কারনে ৭ বছরের মেয়ে শিশু ধর্ষণের শিকার হয়, যা অন্যান্য দলীয় সরকারের সময়ের কখনো হয় নাই। অত্যন্ত হৃদয়বিদারক যে বলায় ভাষা নেই। যেসব জানোয়ার এসব করছে, তাদেরকে আক্ষরিক অর্থে কি আইনে শাস্তি দেয়া উচিত বলায় ভাষা নেই।

যে মেয়েটির বয়স ৭ বছর, যার যৌবনের কিছুই হয় নাই, তাঁকে নিয়েও এমন লোমহর্ষক ঘটনা – যা বুঝিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশের বিচার বিভাগ আসলেই কি বিচার করতে পারে না কি বিচারের নামে প্রহসন চালাচ্ছে জনগণের উপর।

রাষ্ট্রের বর্তমানে আইন এমন দুর্বল যে তরুণী,মেয়ে শিশু ধর্ষণকারী, তরুণীকে পুড়িয়ে মারা হত্যাকারীদের আজও ফাঁসি কিংবা প্রকাশ্যে মেরে ফেলতে পারছে, কিন্তু ধর্ষক বা হত্যাকারীকে আজ পর্যন্ত ফাঁসিতে ঝুলাতে পারে নাই । আবার এসবের জন্য রাষ্ট্রের তরুণদের রাস্তায় নামতে হয় ফাঁসির জন্য, আন্দোলন করতে।

কি যে বলবো ভাষায় প্রকাশ করতে পারছি না, খুবই দুঃখ জনক। আমার জীবনে দেখা বাংলাদেশের রাজনৈতিক ২ টি দলের মধ্যে বর্তমান ক্ষমতাসীনদের সময়ে যত মেয়ে ধর্ষিত হয়েছে, আর মনে হয় অন্য দলীয় সরকারের আমলে এতটা খারাপ ঘটনা ঘটে নাই। সেই ভোটের রাত বছরের শুরুতে সুবর্ণ চরের ঘটনা থেকে যে পরিমান নারী আমাদের দেশে ধর্ষণের শিকার হয়েছে, তা আর অতীতে কখনো হয় নাই। তারপর একশ্রেণীর কুলাঙ্গার বলবে – উন্নয়ন ব্যাপক, এমন উন্নয়নের দরকার নেই, যেখানে একটি মেয়ে শিশু থেকে কোন নারী নিরাপদ নয় আজ। আইনের শাসন নেই। ওই শালা কুলাঙ্গারের লিঙ্গ টা ইত দিয়ে ঝুলিয়ে রাখা হোক, আর গরম পানির ঝরনা থেরাপি দেয়া হচ্ছে না কেন।

বাংলাদেশের রাজনৈতিক ২ টি দলের মধ্যে বর্তমান ক্ষমতাসীনদের সময়ে যত মেয়ে ধর্ষিত হয়েছে, আর মনে হয় অন্য দলীয় সরকারের আমলে এতটা খারাপ ঘটনা ঘটে নাই। সেই ভোটের রাত বছরের শুরুতে সুবর্ণ চরের ঘটনা থেকে যে পরিমান নারী আমাদের দেশে ধর্ষণের শিকার হয়েছে, তা আর অতীতে কখনো হয় নাই। তারপর একশ্রেণীর কুলাঙ্গার বলবে – উন্নয়ন ব্যাপক, এমন উন্নয়নের দরকার নেই, যেখানে একটি মেয়ে শিশু থেকে কোন নারী নিরাপদ নয় আজ। আইনের শাসন নেই।

সোশ্যাল ওয়েবে বসে ফ্যানের বাতাস আর এসি রুমে বসে মন্তব্য করে কোন কাজ হবে না। বর্তমান ক্ষমতাসীনরা জনগণের রক্ত টাকা পয়সা একজন স্বৈর শাসকের মত চুষে খাচ্ছে। তাঁরা আর্থিক সঙ্কটে আছে, তাই যেখান থেকে পারছে, জনগণের টাকা লুটপাটের মহা আয়োজন চলছে। ব্যাপার না, আমরা জনগণও একজন মহান ক্ষমতাশালী স্রষ্টার কাছে বলতে থাকি। একদিন তাদেরও সম্পদ লুটপাট হবে, যেমন শাস্তি পাচ্ছে এক সময়ের বিএনপি।

উচিত – ধর্ষণকারী আর উত্যক্ত কারীদের লিঙ্গ কর্তন করে, ফাঁসিতে ঝুলানো, সাথে এসব কুলাঙ্গারদের পরিবারের সদস্য, বিশেষ করে মা – বাবাকেও কঠিন শাস্তি প্রদান করা উচিত।

যা দেখে আগামীতে কেউ এসব করার সাহস না পায়।