RezwanAhmed & His Team || Software Engineer

Former President Hussain Muhammad Ershad – True Hero and and a Legend of Bangladesh.

Former ruling Country President Hussain Muhammed Ershad — One of the True Hero and and a Legend of Bangladesh.

Former President Hussain Muhammad Ershad passed away 14th July 2019, around 7.45 am.
A lot of controversy should be vanished from today.

But, always I wish good for his soul. Our condolences to his family and well-wishers. May his soul rest in peace.
His contribution is much important in terms after 1971, Independence of Bangladesh. Now and every time it’s prove that in our society Women empowerment never make happy, where a Male Empowerment give happy, more security.

Hussain Muhammad Ershad, one of the most important chapters of Bangladesh politics, after its independence in 1971. He was given the name (Friend of Villages) as Palli Bandhu for amending local administration, as he had introduced the upazila system in 1984, but was criticized as a dictator. During the Liberation war of Bangladesh, this former president was lead the 7th East Bengal Regiment of Bangladesh. Starting time of liberation war in Bangladesh, Ershad was arrested by Pakistan Government as like as other Military Officer.

People or new generation who always told that Former President Ershad is dictator, they never get to know that during his ruling time how much work for the Bangladesh as a Good, Honest and Smartest Leader in Bangladesh, after Independence in 1971.

The title “Palli Bandhu” (Friend of Villages) by his followers for his role in developing rural areas during his rule. From the History of Bangladesh, “Dacca” word was changed into Dhaka and this historical tasks had done by this Former President Hussain Muhammad Ershad. his supporters, mostly in northern Bangladesh, Ershad was the “King” or “Hero”. Their undulated love for Ershad made him “Pollibondhu” or the “Friend of Rural People”. Former President Ershad declared and passed bill for approving Islam as state religion in the constitution. Ershad was interested and invested huge money for building thousands of roads and bridges construction in Bangladesh. It’s approved that Leadership under a Man is best and much better than under a women which reflects.

Former President Ershad did a lot for us for betterment for the People o Bangladesh.

Now in this time we people walk over or run over on thousand road by bus, car, Rickshaw; All of these roads made and spreading during the ruling time of this former President.

Former President Hussain Muhammad Ershad is one best Leader who never need a Gunman for security. During the ruling time of Former President Hussain Muhammed Ershad, the law and security of the Bangladesh was very good.

 


সবসময়ের জন্য সত্য কথা . . .
আর যতদিন বাংলাদেশ থাকবে, এই কথাগুলো সবসময়ের জন্য সত্যি থাকবে ।

তোমরা যারা আমাকে স্বৈরাচার আখ্যা দাও, আমি দেশের জন্য যে উন্নয়ন ও কাজ করেছি তা তোমরা করতে পারনি। আজকে যে রাস্তার উপর ফ্লাইওভার নির্মিত হচ্ছে সে রাস্তা আমার নির্মাণ করা। যে পদ্মা সেতু নির্মিত হচ্ছে সে মাওয়া বিশ্বরোডও আমার শাসনামলে করা।

“ বাংলা ভাষা আজ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। এই স্বৈরাচারই ১৯৮৬ সালে সংসদে বিল পাস করেছিল, সংসদসহ সকল অফিস আদালতে বাংলা ভাষার প্রচলন করতে হবে। বিজ্ঞাপন, ক্যালেন্ডার ও গাড়ির নম্বরে বাংলা বাধ্যতামূলক করেছিলাম। শহীদ মিনার ভঙ্গুর অবস্থায় ছিল, তার পূর্ণাঙ্গ সংস্কার আমি স্বৈরাচারই করেছিলাম। স্মৃতিসৌধ সংস্কার ও শহীদ বুদ্ধিজীবী মাজার আমি করেছিলাম। ”

“ এত অত্যাচার অবিচারের পরও আমি বেঁচে আছি। আমার কোনো বডিগার্ড নেই, গানম্যান নেই- একা চলি।
কারণ আমি জানি দেশের জনগণ আমাকে ভালোবাসে। এই দেশের জনগণই আমার গানম্যান। ”

বাংলাদেশের উন্নয়নে সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রেসিডেন্ট এরশাদের অবদানও কম নয়। অনেকেই হয়তো জানেন না দাপ্তরিক ভাষাকে বাংলায় সরকারি ভাবে বাধ্যতামূলক করাসহ ৮২’সালের পূর্ব পর্যন্ত ঢাকাকে ইংরেজিতে Dacca ডেক্কা উচ্চারণ করা হতো ‌। বৃটিশ উপণিবেশিক শাসকরা বিকৃত উচ্চারণ স্হায়ী করে যান। 

১৯৮২,সালে শুদ্ধ ভাবে ইংরেজিতে Dacca থেকে Dhaka তে পরিবর্তন করেন। 

সরকারী ভাবে এই রাষ্ট্রপতি প্রেসিডেন্ট এরশাদই বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় ধর্ম ইসলাম তা সংবিধানে সংযোজন করেন। তিনিই দেশে রেডিও, টিভিতে পাঁচ ওয়াক্ত আজানের প্রচলন শুরু করেন।

উপজেলা প্রবর্তন,গ্রামিন উন্নয়ন সহ তিনিই প্রথম মধ্যেপ্রাচ্য ব্যপক আকারে বাংলাদেশের জনশক্তির কর্মসংস্থানের ক্ষেত্র তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। ঢাকার বিজয় স্বরণী সড়ক তৈরি সহ পুরোনো ঢাকার বিভিন্ন সড়ক প্রসস্স্ত করেন। সর্বোপরি ৮৮সালের ভয়াবহ বন্যা সফলতার সাথে মোকাবেলা করেন।

ঢাকার চার পাশে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ তৈরি করেন এখনো যা সর্বত্র অক্ষত অবস্থায় রয়েছে।। চাল,ডাল, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র, দ্রব্যমূল্য ছিল খুবই সহনিয় পর্যায়ে। ১ গ্যালন অর্থাৎ ৪.২০লিটার পেট্রলের মূল্য ছিল ৮/আট টাকা মাত্র।
নতুন গাড়ির রেজিস্ট্রেশন ৮০০/আট শত টাকা….

আর দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ছিল খুবই নিরাপদ।
যারা সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রেসিডেন্ট এরশাদের আমল দেখেছেন তাদের অভিজ্ঞতা থেকে নতুন প্রজন্ম জেনে নিবেন।

নতুন প্রজন্ম যেহেতু ঐ সময় সম্পর্কে খুব বেশি জানেন না তাই তাদের মন্তব্য হয়তবা কিছুটা ভিন্ন সেই ক্ষেত্রে
তাদের কে দোষারোপ করা যায় না। বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রেসিডেন্ট এরশাদের শাসন কাল ছিল ৯ বৎসর।

Advertisements

One response

  1. Toller Blogbeitrag! Die Thematik ist gerade ziemlich aktuell und wird es evtl. in der Zukunft weiterhin bleiben.

    Like

    September 10, 2018 at 6:15 pm

Suggestion ::

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.