A Brand Name ||Official Url :: Software UI Designer| Contents Designer | OS | W€B | Server | Programming | Computing Technology ::

Author Archive

DATA Usage


Your data could be potentially accessible for misuse, ranging from identity theft to having your critical personal information (like home address, credit card numbers etc.) leaked online. And this is why cyber privacy is important, since it means you’re actively taking steps to keep your data secure, private.
Social media companies earn revenue from advertisements, they place ads in your feed so you can engage with them.

Cyber Privacy remains that the best way to stay safe is to try and be smart about what you use on the internet, and that the ones you do trust to keep your data don’t accidentally leak it.

Advertisements

Pretty Good Privacy PGP


Pretty Good Privacy (PGP) is an e-mail encryption scheme that has become a de facto standard. Its Web site serves more than a million pages a month to users in 166 countries [PGPI 2012]. Versions of PGP are available in the public domain; for example, you can find the PGP software for your favorite platform as well as lots of interesting reading at the International PGP Home Page. 

When PGP is installed, the software creates a public key pair for the user. The public key can be posted on the user’s Web site or placed in a public key server. The private key is protected by the use of a password. The password has to be entered every time the user accesses the private key. PGP gives the user the option of digitally signing the message, encrypting the message, or both digitally signing and encrypting.

 


Software Utilisation and Features of Software


Now, we’re using software in business, industry, administration, business research, service sectors, education system, Agribusiness industry, Eco system technology, mechanical engineering, medical treatment sectors, vaccines, and many sectors in the world.

But, increasing a number of software users are non-experts. Usability, robustness, simple installation, integration, security become the most important features of software. Moreover, many people achieving  bright good degree in his/her career as well as enough experience in business sectors or public sectors, but they have less experiences to operate software into their computing machine system. For that case, sometimes they make damage many software, or entire computing system for lack of usage the Notebook, PC.


26th March – Greatest Independence Day of Bangladesh


২৬শে মার্চ
বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস

স্বাধীনতা তুমি বাংলাদেশের শত তাজা প্রানের বিনিময়,
স্বাধীনতা তুমি লাল সবুজের বাংলাদেশের শত শহীদের রক্তে ভেজা ।

26th March – Greatest Independence Day of Bangladesh.


আমাদের ৫২’র ভাষা আন্দোলনের শহীদ মিনার


বাংলাদেশ আর বাঙালী জাতি যতদিন থাকবে, ততদিন আমাদের প্লারানের বাংলা ভাষা থাকবে, সেইভাবে থাকবে আমাদের ৫২’র ভাষা আন্দোলনের শহীদ মিনার।
আমরা আর আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম যেন ভাষা শহীদদের আত্মত্যাগের কথা ভুলে না যাই। আর আমাদের এই বাংলা ভাষার যেন উপযুক্ত প্রয়োগ যেন দেশের সর্বত্র হয়।

ভাষা শহীদ মিনারের বেদিতে খালি পায়ে গিয়ে পুস্প দিতে হবে, সেটাও যেন না ভুলে যাই। বর্তমানে দেখা যাচ্ছে – ভাষা দিবস ২১শে ফেব্রুয়ারি পালনটা নিছক আনন্দ আর গান বাজনার দিয়ে শুরু করাটা মারাত্মক ভুল। কারন, আআমদের বাংলা ভাষাকে প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে যারা শহীদ হয়েছে, সেই ভাষা শহীদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া মাহফিল আর আল্লাহ যেন তাদের জান্নাতবাসী করে সেই রকম দোয়া করতে দেখা যায় না বললেই চলে।

Shahid Minar Symbol of Language hero of 1952 Bangladesh.
We and Our future Generation Never forget the sacrificing value of life for Bengali Language Movement Hero of Bangladesh.


Nawab Sir Salimullah – Founder of Dhaka University


বর্তমান সময়ে তরুন প্রজন্ম রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরেরে মহাপ্রয়ান দিবস, রবিন্দ্র জয়ন্তী পালন করে। বাংলাদেশে ঢাকা বিরোধী – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরেরে মহাপ্রয়ান দিবস, রবিন্দ্র জয়ন্তী এসব পালনে কোন মর্মার্থ নেই, আর যারা পালন করে তাঁদের অনেকেই ইতিহাস জানে না।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বপ্নদ্রষ্টা নবাব স্যার সলিমুল্লাহ, এই বঙ্গসন্তান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রূপকার। সেই নবাব স্যার সলিমুল্লাহকে আজকের শিক্ষার্থীদের অনেকেই চেনা-তো দূরের কথা নামটাও জানেনা। নবাব স্যার সলিমুল্লাহ’র গত ১৬ ই জানুয়ারী ছিল মৃত্যুবার্ষিকী।

কিন্তু এসব তরুন প্রজন্মের অনেকেই জানে না – যা সংগৃহীত অংশ থেকেই বলছি —
” তৎকালীন সময়ে কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বাঙালি বিদ্বেষ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় বিরোধীতার কথা কমবেশি সবারই জানা। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় শুধু কঠোরভাবে বিরোধিতা করেই ক্ষান্ত হননি বরং তিনি ব্রিটিশদের সাথে রীতিমতো দেন-দরবার করেছিলেন যাতে ঢাকায় বিশ্ববিদ্যালয় না করা হয়।
সেসময় রবীন্দ্রনাথ এক অনুষ্ঠানে দাম্ভিকতার সাথে বলেছিলেন “মূর্খের দেশে আবার কিসের বিশ্ববিদ্যালয়, তারাতো ঠিকমতো কথাই বলতে জানেনা ! ”
অন্যত্র এক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের মানুষকে তীব্রভাবে কটাক্ষ করে রবী ঠাকুর বলেছিলেন ” সাত কোটি সন্তানের হে মুগ্ধ জননী, রেখেছো বাঙালী করে মানুষ করোনি “।
অথচ সেই রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মদিন, মৃত্যুদিন, সাহিত্য উৎসবসহ আরো অনেক অায়োজন ধুমধামের সাথে পালন করা হয়।

নবাব স্যার সলিমুল্লাহ’র দান করা ৬০০ একর জমির উপর আজকের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল, বুয়েটের মতো দেশের শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো দাঁড়িয়ে আছে। অথচ তাঁর মৃত্যুবার্ষিকীতে এইসব প্রতিষ্ঠানে কোন দোয়ার আয়োজন করা হয়নি। করা হয়নি কোনো স্মৃতিচারণামূলক অনুষ্ঠান।
নবাব সলিমুল্লাহর জন্ম ১৮৭১ সালের ৭ ই জুন। ছোটবেলা থেকেই ছিলেন অত্যন্ত ধর্মপ্রিয়। ফলে অভিজাত পরিবারের সন্তান হয়েও তিনি সাধারণ মানুষের কাছাকাছি অবস্থান করতেন। সাধারণ মানুষের দুঃখকে তিনি নিজের দুঃখ মনে করতেন। তিনি অকাতরে দান করতেন।
নবাব সলিমূল্লাহ, ১৯১১ সালের ২৯ আগস্ট ঢাকার কার্জন হলে ল্যান্সলট হেয়ারের বিদায় এবং চার্লস বেইলির যোগদান উপলক্ষে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে নওয়াব আলী চৌধুরীকে নিয়ে পৃথক দুটি মানপত্র নিয়ে ঢাকায় একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবি জানান।
— নবাব সলিমূল্লাহ যিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য ঢাকার রমনা এলাকায় নিজ জমি দান করেন, বাবার নামে আহসানউল্লাহ ইঞ্জিনিয়ারিং স্কুল (বর্তমানে বুয়েট) প্রতিষ্ঠা করেন।

নবাব সলিমূল্লাহ, ১৯০৫ সালে বঙ্গদেশকে দুই ভাগে ভাগ করে, ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও আসাম নিয়ে ঢাকাকে রাজধানী করে পূর্ববঙ্গ গঠন করেন।

রহস্যজনক মৃত্যুঃ
ঢাকার নবাব সলিমুল্লাহর পূর্ব পুরুষ ইংরেজদের দালালি করলেও নবাব সলিমুল্লাহ তিনি ছিলেন ব্যতিক্রম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা নিয়ে তৎকালীন হিন্দু সমাজ এবং লাটের সাথে তার বাদানুবাদ হয়। কথিত আছে যে, বড়লাট রাজি ছিলেন না ঢাকায় কোন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করতে। এই নিয়ে নবাবের সাথে বড় লাটের তীব্র বিতর্ক হয়। নবাব সবসময় একটা ছড়ি নিয়ে ঘুরতেন। যখন বড়লাট রাজী হচ্ছেন না ঢাকায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করতে তখন নবাব রেগে গিয়ে ছড়ি দিয়ে বড়লাটের টেবিলে বাড়ি মারেন। বড়লাটের দিকে এগিয়ে আসেন। তখন বড়লাটের হুকুমে বড়লাটের হিন্দু দেহরক্ষী নবাবকে গুলি করেন। পরে প্রচার করা হয় যে তিনি হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যায়। ১৬ ই জানুয়ারী,  নবাব সলিমুল্লাহ মৃত্যু বার্ষিকী। অথচ, যার দান করা ৬০০ একর জমির উপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দাঁড়িয়ে আছে সেই বিশ্ববিদ্যালয়ে তাকে স্মরণ করা হয়না। মানুষের এমন অকৃতজ্ঞতা দেখে নবাব হয়তো কবর থেকেই বিস্মিত হচ্ছেন। ঢাকার নবাব স্যার সলিমুল্লাহ আপনি আমাদের ক্ষমা করে দিন।
সংগৃহীত। ”

এই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় না থাকলে আজকে কারা ভাষা এনে দিতো আমাদের? এই ঢাবি না থাকলে কারা স্বাধীনতাকে এনে দিতো? এই বুয়েট না থাকলে কারা বিশ্বমানের ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার সুযোগ করে দিত ?


আমি


আমি ভোরের শিশির হয়ে যেতে চাই হারিয়ে,
আমি মেঘে ঢাকা কুয়াশায় মিশে যেতে চাই।
আমি আমার অধিকারের কথা বলায় হয়ে গেছি শত্রু,
আমার মতামতের কথা বলায় অনেকের কাছে আজ আমি বিবর্জিত।

আমি আমার মত করে চলতে গিয়ে, সত্য কথা বলতে গিয়ে আমি অপরাধী।
কিন্তু, তাঁরা ভুলে গিয়েছে আমি জলন্ত শিখার মত উজ্জ্বল নক্ষত্র, আমি সত্যবাদী।


Security Engineering


Security engineering is concerned with the development and evolution of systems that can resist malicious attacks, which are intended to damage the system or its data or information.
Software security engineering is part of the more general field of computer security.

Software engineers should be aware of the security threats faced by systems and ways in which these threats can be neutralized.