RezwanAhmed & His Team || Software Engineer

Latest

digital evidence


Digital evidence is a probative information stored or transmitted in digital species like data, photograph, audio, video, DVD, memory card, hard disk, e-mail, telegram, telex.

** The laws on criminal procedure in Bangladesh, such as, the Evidence Act of 1872 and the Code of Criminal Procedure (CrPC) 1898 prescribe no explicit provision recognising or approving of its admissibility into judicial proceedings but contain scope of judicial interpretation which may allow for the same.

In Bangladesh, no specific insertions have been made for the admission of digital evidence. However, special laws like the Information and Communication Technology Act of 2006 and the Digital Security Act of 2018 have been enacted.

The words “any matter expressed or described upon any substance by means of letters, figures or marks” under the elucidation of “Documentary Evidence” as codified in section 3 of Evidence Act, section 3(16) of General Clauses Act and section 29 of Penal Code can be interpreted to include digital evidence, since the word “matter” is a term of the widest amplitude.

Judicial interpretation articulates that digital evidence is an amplification of matter expressed or described upon digital substance by means of letters, figures or marks and inclusive of material and secondary evidence. It verbalises that the other forms of digitalisation have the same legal entity. If question as to authentication and tampering of digital evidence arises, the law prescribes gateway to remove any sort of doubt. Expert opinion rule under section 45 of the Evidence Act provides the scope to seek expert opinion of science. Search and examination rule of section 165 and 161 of the Code of Criminal Procedure empower the Investigating Officer to attach anything and examine its maker. This procedure may be followed to cross-examine the makers of the documentary evidence.

To recapitulate, although digital evidence may be admissible under the present law but as proliferation of technology expands and the nature of electronic information grows to be even more complex, the law should be revised to meet the needs of the time.

 

Reference

https://www.thedailystar.net/law-our-rights/news/admissibility-digital-evidence-1790917 

Casino Generation Culture and the Youth in Bangladesh


Casino Business, beside operate Torture cell that used the cell to torture people who would not pay money as per as demands.
The ruling party’s some person performing looted and extortion money from people, different projects of University.

Casino City Dhaka when under going to water, then Water Development Board and Ministry Department singing song and shouted that everywhere they seen the Development. 

Drainage Development now going under water. And the Mayor of the South City Corporation always joking with public through big big promises. Though, South City mayor not get proper success from the Dengue war, but South City mayor bring success poor drainage system.

What a development of the Young generation, our Bangladesh.
Rest, they should be tell to people of country the story of development. Allaah now starting to vanished all story.

যুবলীগ করে খেলার নামে ক্যাসিনো ব্যবসা, মদের ব্যবসা,
ছাএলীগ করে চাঁদাবাজী ।
আর কি বাকি রইল, দে লুটপাট করে দে, সব চেটে লুটপাট করে খাই।
আরও আছে দেখার বাকি… !!!

Always told big big promise in different talk show and in-front of media. But, inner side always beer, huskily in their hand.

Atleast, they’re tired too much stay up in power.
So, setup casino in every ward and cheers up in Casino. Beside, make spoiled life and damaged many youths.

After all, thanks to our PM that hardly caught them and stop the leadership.

ঢাকায় যে কাসিনো আছে জানতাম না।

ঢাকার বাণিজ্যিক এলাকা মতিঝিলে আছে অনেক ক্লাব, যেগুলো রাতের আধারে ঝাঁঝালো আলোয় চলছে ঢাকার যুবক সমাজকে ধ্বংস করার কারখানা।

মজার বিষয়, যারা আটক, তারা কেউ বর্তমান বিরোধী দলের কেউ না। এজন্য, র‌্যাবকে ধন্যবাদ পেতেই হবে।

বাংলাদেশে ক্যাসিনো নিষিদ্ধ থাকা সত্ত্বেও কিভাবে চলছে। অথচ, র‌্যাব যাদের গ্রেপ্তার করেছে, তারা এসব ক্যাসিনো নামের মদ, আর জুয়াড়িদের আসর চালাচ্ছে, আবার বড় বড় গলায় বলে তরুন সমাজ আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। এমনকি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নামে যে ক্লাব, সেখানেও মদ আর জুয়ার আসর। অবাক হতে হয় – এভাবে মুক্তিযোদ্ধাদের অপমান করেছে।

আজ যদি বিরোধী দলের কেউ হতো, তাহলে সুষ্ঠ বিচার কি, কত প্রকার, বাঙালী জাতি দেখতে পারতো।

greediness or temptation is so much


The news so old that already many people get to know. The greediness or temptation is so much bad that anyone can fall into cruel and rough situation in any place.

In Bangladesh has lots of jobs, but you must try to searching continue. Education sector in Bangladesh is not world class, but education of Bangladesh can adjustable with the World.

If anyone wants to go abroad for study that’s good and perfect decision. But, it’s a questionnaire that majority person never change their fate through going to abroad by invest lots of money. Many people in Bangladesh always thought that if anyway go to abroad, then he or she should be change their lifestyle, earn huge money. That’s totally wrong.

Lost money, Lost life, Damage a family.

Better, try to invest that money into motherland, or invest into other side, or save money into Bank, and rest hardly try to find out the work into country.


টাকা থাকলে, উচ্চ শিক্ষার জন্য বাহিরের দেশে যাওয়াটা ভালো, অভিজ্ঞতা, শিক্ষা ২ই অর্জন করা সম্ভব হয়।

কিন্তু, বেশি আয়ের পথ হিসেবে বাহিরের দেশে যাওয়াটা অবাস্তব, বোকামির চিন্তা-ভাবনা। বেশি আয়ের পথ হিসেবে বাহিরের দেশে যাওয়ার স্বপ্ন না দেখে, দেশেই বসে কিছু করার চেষ্টা সবারই করা উচিত। যে পরিমাণ টাকা বাহিরের দেশে যেতে খরচ করতে হয়, তার থেকে ভালো, সেই টাকা দিয়ে নিজের দেশে কিছু করা উচিত।

বাহিরের দেশ কখনো টাকা উপার্জনের পথ নয়, পরিবারের শান্তি-ও আনতে পারে না।

ব্যাংকে কর্মরত তারপর, অনেক টাকা চাই। জীবনে ভালোভাবে চলতে খুব বেশী টাকা লাগে না। এত লোভী মানুষ যে বেশী লোভে এমন করূন মৃত্যু ।

 

Always try to maintain and followup your Religion tasks


Always try to maintain and followup your Religion tasks.

Pray your Namaz…Believe in Your Creator.
Aa a Muslim, always try to pray your Namaz and submit your all voice & opinion to your Creator / Allaah.
He’ll remove your all pain and give more.. that should be unbelievable.

try to be Honest on your Tasks though get Little Salary


From my childhood, always listening that Honesty Is the Best Policy, If you always practice to do how became to be Honest. Then one day you’ll get a good result. Finally, always pray to your Creator or God.

That’s already proved.

In career life, always try to be Honest on your tasks, though get little salary.

One day you should be earn big amount salary with wide experiences. Try to be honest. Try to attention on your tasks. Try one more times when you should be fail. Don’t care where many people say you lot off.

Dengue Session and follow different step against to Mosquito


Why the Mosquito Prevented Coil local company stop their business at this time. It’s very saddest news.

We mango people while using this Mosquito Prevention coil, then the administration some culprits try to stop this local business by inspiring illegal company and gave a big opportunity to enter Indian Company into Bangladesh except tax. They always applying more tax on the country local companies but, same the higher tax not applying on the illegal mosquito company, who using very harmful elements.

The Administration of the Bangladesh section cannot monitor this section. The Administration people and two City Corporation NDCC, SDCC of Dhaka major 85% employee are corrupted, less skilled that addicted into only looted money from the citizen of Bangladesh. But, this 2 city corporation fully failed to stop destroy mosquito in the central city Dhaka.

Absolutely, confused that they always told that they’re walking on the development and spent huge money. But, why continue happening different style corruption.

Attention please follow some steps to far away from attacking into Dengue.

  • Remove and vanished all dust from the outside of your house.
  • Never store any water beside or inside of the Home, always keep surroundings clean to prevent dengue
  • Always uses good quality coil and aerosol for prevented mosquito. Better try to use the electric mosquito coil as like as ACI, Mortin.
  • Always open the window, beside remove curtain into one side that more sun light entry into room. During evening, switched on all light of the room. 

Holy Ashura and the Respected Death of Imam Husayn


10th Muharram is the very Important Historic day in the Muslim World. In Quran say that on this Arabic first month 10th Muharram day Allah created this world, and will destroy the Earth. Allaah accepted all dua requested of the Muslim.

Many things happened and will be happening on this 10th Muharram.

So, every Muslim always try to pray to their creator Allah more and more on this 10th Muhraam, Arabic 1st month.

The events of Karbala reflect the collision of the good versus the evil, the virtuous versus the wicked, and the collision of Imam Husayn (the head of virtue) versus Yazid (the head of impiety). Al-Husayn was a revolutionary person, a righteous man, the religious authority, the Imam of Muslim Ummah.

Finally, the day of Ashuraa dawned upon the soil of Karbala. It was the day when Jihad would be in full bloom, blood would be shed, 72 innocent lives would be sacrificed, and a decisive battle would be won to save Islam and the Ummah.

Lessons from the Tragedy of Karbala

Karbala is the cruelest tragedy humanity has ever seen. Yet, the startling (though appalling) events in Karbala proved like a powerful volcano that shook the very foundation of Muslims, it stirred their consciousness, ignorant or learned alike. For sincere Muslims, Karbala turned into a triumph. The tragic event became the very beacon of light to always remind Muslims to practice Islam honestly and sincerely, to do what is right irrespective of consequences, and fear no one except Allah (swt).

On the other hand, Yazid never achieved what he and his father had planned to achieve, for within three years, Allah’s wrath fell upon him, causing him to die at the age of 33 years. And within a few decades the rule of Bani Umayya crumbled and came to an end.

The tragedy of Karbala taught humanity a lesson that standing for the truth and fighting unto death for it is more honorable and valuable than submitting to the wrongful, especially when the survival of Islam is at stake.

জীবনে সফল হতে আজ থেকেই মেনে চলুন পবিত্র কোরআনের চার পরাম’র্শ


জীবনে সফল হতে আজ থেকেই মেনে চলুন পবিত্র কোরআনের চার পরাম’র্শ

জীবনে সফল হতে চান – সফল হতে পরিকল্পনামাফিক আম’রা অনেক কাজই করে থাকি। সাফল্যের পেছনে ছুটোছুটি করি। সফল হতে গেলে মাত্র চারটি বিষয়ে মনোযোগী হতে হয়। এই চারটি বিষয় আয়ত্ত করতে পারলে যেকোনো মানুষই সাধারণ থেকে অসাধারণ হয়ে উঠতে পারে – ইহকালে এবং পরকালেও। সূরা ‘আসরের দ্বিতীয় আর তৃতীয় আয়াতে আল্লাহ তাআলা এই চারটি বিষয় আমাদের বলে দিয়েছেন। তাহলে জেনে নেওয়া যাক সেই চারটি বিষয়:

১. বিশ্বা’স রাখু’ন: “ঈ’মান” শব্দের অর্থ হলো বিশ্বা’স। মৃ’ত্যু পরবর্তী জীবনে সফলতা চাইলে এক আল্লাহ তাআলা, তাঁর রাসূল (সা.) এবং রাসূল (সা.) এর উপর যা অবতীর্ণ হয়েছে তাতে বিশ্বা’স রাখতে হবে। আর এই জীবনে সাফল্য অর্জন করতে হলে আমাদের বিশ্বা’স রাখতে হবে – “আমি পারবই ইনশা’ আল্লাহ”। হাল ছেড়ে দিলে চলবে না।উচ্চারণ: ওয়াল ‘আসর ইন্নাল ইনসা-না লাফিই খুসর। ইল্লাল্লাযিনা আ-মানু… (সূরা ‘আসর ১-২) অর্থ: সময়ের শপথ, নিশ্চয়ই মানুষ চরম ক্ষতির মধ্যে নিমজ্জিত। তারা ছাড়া, যারা ঈ’মান এনেছে…

২. যা করা দরকার তা করে যান: অনেক সময় আমাদের এমন হয় যে – নামায পড়তে ইচ্ছা করে না, যিকর করতে মন চায় না, কোরআন মজিদ পড়ারও আগ্রহ পাওয়া যায় না – তবু যেহেতু আল্লাহ তাআলা ও তাঁর রাসূল (সা.) এই আমলগুলো আমাদের করতে বলেছেন – তাই এগুলো করে যেতে হবে।একইভাবে, দুনিয়াতে সাফল্য লাভের জন্যও কিছু রুটিন ওয়ার্ক আছে, সেগু’লি আমাদের করে যেতে হবে। যেদিন ভালো লাগবে সেদিনও একজন ছাত্রকে পড়তে বসতে হবে, যেদিন ভালো লাগবে না সেদিনও তাকে পড়তে বসতে হবে; একজন চাকুরিজীবীর যেদিন কাজে মন বসবে সেদিন অফিসের কাজ করতে হবে। আবার কাজে মনোযোগ না বসলেও জো’র করে অফিসের কাজ করে যেতে হবে। যা করা উচিত তা করতে থাকতে হবে, আজ বা আগামীকাল এর ফল চোখে না দেখা গেলেও, পরশু এর ফল ঠিকই পাওয়া যাবে। وَعَمِلُوا الصَّالِحَاتِ উচ্চারণ: ওয়া ‘আমিলুস স্বয়ালিহ্বা-তি… (সূরা ‘আসর ৩) অর্থ: যারা ভালো কাজ করে

৩. নতুন কিছু শিখু’ন: আল্লাহ তাআলা কোরআন মাজিদের সূরা ফাতির-এর ২৮ নং আয়াতে বলেছেন- إِنَّمَا يَخْشَى اللَّهَ مِنْ عِبَادِهِ الْعُلَمَاء إِنَّ اللَّهَ عَزِيزٌ غَفُورٌ “আল্লাহ তাআলার বান্দাদের মধ্যে শুধু তারাই তাঁকে ভয় করে যাদের জ্ঞান আছে”। ইস’লাম স’ম্পর্কে আপনি যত জানবেন ততই প্রাত্যহিক ইবাদতগুলো আপনার কাছে ধীরে ধীরে গভীর অর্থবহ হয়ে উঠবে। নামায-রোযাকে আপনার কাছে কেবল রুটিন ওয়ার্ক কোনো ব্যাপার বলে মনে হবে না, বরং তখন আপনি এই ইবাদতগুলোর মাঝে ঈ’মানের সুমিষ্ট স্বাদ আস্বাদন করতে থাকবেন। পার্থিব জীবনেও সেই ব্যক্তি তত সফল, যে অন্য মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে সবচেয়ে বেশী অবদান রাখতে পারে। আর অন্যের উপকারে আসতে চাইলে, আগে নিজের উন্নয়ন করতে হবে। ভালো কথা অন্যকে বলতে হলে আগে নিজেকে ভালো কথা শিখতে হবে। وَتَوَاصَوْا بِالْحَقِّ উচ্চারণ: ওয়াতা ওয়া- সাওবিল হাক্কি… (সূরা ‘আসর ৩) অর্থ: একে অ’পরকে সঠিক উপদেশ দেয়

৪. মানুষের উপকারে আসো: নবী হওয়ারও আগে হযরত মুহাম্ম’দ (সা.) ছিলেন ম’ক্কার সবচেয়ে বিশ্বস্ত আর পরোপকারী মানুষ। রাসূলুল্লাহ (সা.) তাঁর সমস্ত জীবন ব্যয় করেছেন অন্য মানুষদের ভাগ্য উন্নয়নে। যত অল্প টাকাই হোক না কেন আম’রাও তা দিয়েই মানুষকে সাহায্য করব, যত অল্প শ্রমই হোক না কেন তা দিয়ে মানুষের উপকার করব। যত অল্পই শিখি না কেন, তা অন্যদের সাথে শেয়ার করব। পরিবার, বন্ধু, প্রতিবেশীসহ সব মানুষকে উপকারের চেষ্টা করব। কারো কাছ থেকে প্রতিদান চাইবো না, প্রতিদান চাইবো শুধুই আল্লাহর কাছে।

মানুষকে উপকার করার এই পথ মধুর না, বন্ধুর। অনেক সমালোচনা-গালমন্দ শুনব, অনেক অকৃতজ্ঞ মানুষের দেখা পাবো, অনেক সময় আর্থিক বা সামাজিক সংকটে পর্যন্ত পড়ে যেতে পারি – তবু ধৈর্য্য ধরব। যত অল্পই হোক না কেন, নিজের সাম’র্থ্য অনুযায়ী বিলিয়ে দেবো। হযরত মুহাম্ম’দ (সা.) বলেছেন, খেজুরের অর্ধেকটা দান করে হলেও নিজেকে জাহান্নামের আ’গুন থেকে বাঁ’চাও (বুখারী)। وَتَوَاصَوْا بِالصَّبْرِ উচ্চারণ: ওয়াতা ওয়া- সাওবিস সবর। (সূরা আসর-৩) অর্থ: একে অ’পরকে ধৈর্য্যের উপদেশ দেয়।

দ্বিতীয়-তৃতীয় আয়াতে বর্ণিত এই চারটি কাজ যদি আম’রা না করি তাহলে আম’রা মা’রাত্মক ক্ষতির মধ্যে ডুবে যাবো। এই ক্ষতির ভয়াবহতা যে কতটা চরম তা বুঝাতে আল্লাহ তাআলা এই কাজগুলোর উপর চারভাবে গুরুত্ব আরোপ করেছেন। এক. প্রথম আয়াতে আল্লাহ তাআলা সময়ের কসম নিয়েছেন। আল্লাহ তাআলা কোন কিছু কসম নেয়ার অর্থ হচ্ছে তার পরের কথাটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। দুই. আল্লাহ তাআলা “ইন্না” দিয়ে বাক্য শুরু করে গুরুত্ব আরোপ করেছেন। “ইন্না” শব্দের অর্থ হলো “নিশ্চয়ই”।

তিন. আল্লাহ তাআলা “ইন্নাল ইনসানা ফী খুসর” (নিশ্চয়ই মানুষ ক্ষতির মধ্যে আছে), না বলে “ফী” এর আগে “লা” যুক্ত করেছেন। এই “লা” এর অর্থ হলো “অবশ্যই”। সুতরাং আল্লাহ তাআলা যখন বললেন “ইন্নাল ইনসানা লাফী খুসর”, এর অর্থ দাঁড়ায় “নিশ্চয়ই অবশ্যই মানুষ ক্ষতির মধ্যে আছে”। চার. আল্লাহ তাআলা তৃতীয় বাক্য শুরু করলেন “ইল্লা” (“শুধু তারা বাদে” বা Except) দিয়ে। ইল্লা দিয়ে কোন বাক্য শুরু করা হলে সেটা পূর্ববর্তী বাক্যের গুরুত্ব বাড়িয়ে দেয়। যেমন – কোন ক্লাসের ১০০ জন ছাত্রের মধ্যে যদি ৯৫ জন ফেইল করে তাহলে টিচার বলবেন

“এই ক্লাসের ছাত্ররা ফেল করেছে, শুধু কয়েকজন বাদে”, অর্থাৎ ফেল করাটাই যেন স্বাভাবিক ঘটনা, পাশ করাটা হলো ব্যতিক্রম। একইভাবে, আল্লাহও তাআলা বলতে চাইছেন যে, অধিকাংশ মানুষই ক্ষতির মধ্যে রয়েছে, শুধু গুটিকয় আছে যারা সঠিক পথে আছে। আমাদের অফিসের কোন বিশ্বস্ত কলিগ যদি এক বা দুইবার নয়, চার চারবার ফোন করে বলে – “বন্ধু, মহাখালীর রাস্তায় এক্সিডেন্ট হয়েছে, বিরাট জ্যাম, ভুলেও ঐ পথে যেও না, ঘুরে যাও” – তাহলে আম’রা বাসায় ফিরতে নিশ্চিত মহাখালীর রাস্তা নিব না।

আর, আমাদের পালনক’র্তা প্রভু যখন আমাদের একই আয়াতে চারবার সতর্ক করে কোন কিছু করতে আদেশ করেন তখন আম’রা কত অনায়াসে সেই আদেশ অমান্য করে দিনাতিপাত করতে থাকি! ই’মাম শাফেঈ’ রহ. বলেছেন – লোকে যদি শুধু এই সূরা (সূরা ‘আসর) নিয়ে চিন্তা করত, সেটাই তাদের জন্য যথেষ্ট হত।

%d bloggers like this: