A Brand Name ||Official Url :: Software UI Designer| Contents Designer | OS | W€B | Server | Programming | Computing Technology ::

Information Technology Market তথ্যপ্রযুক্তি বাজার- পর্ব ০১:: প্রযুক্তি হালচাল ও আমাদের বাংলাদে

Aside

Information Technology Market তথ্যপ্রযুক্তি বাজার- পর্ব ০১:: প্রযুক্তি হালচাল ও আমাদের বাংলাদেশের সফটওয়্যার প্রযুক্তির বাজার


সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং এমন একটা শিল্প, অনেকেই শুধু চিন্তা করে যে সফটওয়্যার design, develope আর customized করা ছাড়া কোন কাজ নাই, বাস্তবিক তা নয়। আর সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং ও তথ্য-প্রযুক্তি শিল্পের শাখা সুবিশাল, কাজের সুযোগও অনেক কিন্তু কাজের গাইড লাইন করার মতো উপযুক্ত কেউ নাই, আমি যখন কাউকে বলি কম্পিউটার প্রকৌশলী পড়ে কি করবে, আর কেন পড়ছ, সবাই একটা কথা সফটওয়্যার design, develope আর customized করবে আর ব্যাংক ও বড় প্রতিষ্ঠানে কাজ করবে, মিডিয়া শিল্পে কাজ করবে।

অবশ্যই ভালো কথা কিন্তু

আজ পর্যন্ত শুনি নাই যে – কেউ সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং ও তথ্য প্রজুক্তিতে পড়াশুনা করে  – সফটওয়্যার নিয়ে রিসার্চ করবে আর সফটওয়্যার ও তথ্যপ্রযুক্তিতে আগ্রহি করে তুলতে, নিত্য নুতুন প্রযুক্তির সাথে পরিচয় করিয়ে দেবার কাজ করবে। অনেকেই ভাবছেন যে সফটওয়্যার নিয়ে আবার কিসের গবেষণা।

বিশ্বের নামী দামি, ছোট কিন্তু প্রজুক্তিতে ব্র্যান্ড কোম্পানিগুলো সফটওয়্যার নিয়ে অনেক গবেষনা, বাজার বিশ্লেষণ করার পর বাজারে সফটওয়্যার উম্মুক্ত করে, আমাদের বাংলাদেশের মতো ১ মাসে সফটওয়্যার তৈরি করে বাজারে ছাড়ে না, আর বাংলাদেশের সফটওয়্যার কোম্পানি গুলোতে গবেষণা বলতে কিছুই হয় না, একদমই হয় না ।

আমি অবশ্যই সফটওয়্যার প্রযুক্তির বেশ কিছু বিষয় নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি, সেই জন্য আমার একটা ছোট পরিসরে সফটওয়্যার ল্যাব ও আছে, ল্যাব Softdata Archive LAB । কিন্তু আমাকে এর আগে দীর্ঘ ৯ বছর বিভিন্ন সফটওয়্যার, সফটওয়্যার design, develop, software compiling নিয়ে  কাজ করতে হয়েছে। আমি মূলত – সফটওয়্যার design, সফটওয়্যার প্রযুক্তি নিয়ে উম্মুক্ত গবেষণা, আর সফটওয়্যার প্রযুক্তিতে বাংলাদেশের মানুষকে আগ্রহী করে তুলতে, সফটওয়্যার প্রযুক্তিতে শিক্ষা পরিকল্পনা, চিকিৎসা প্রযুক্তি আর নুতুন প্রযুক্তির সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার কাজ তা করে যাচ্ছি, ইনশাল্লাহ হয়তো কোনদিন সফলতার পথ দেখবো, অবশ্যই আমি কিছুটা সফলতা পেয়েছি, যদিও তা খুবই সামান্য, কিন্তু তাই অনেক।

যদি সুযোগ তৈরি করে দেওয়া না হয়, নিত্য নুতুন প্রযুক্তির সাথে পরিচয় না করিয়ে দেওয়া হয়, কখনোই বিশ্ববাজারে, বাংলাদেশ প্রযুক্তিতে সামনে এগতে পারবে না।

অনেকেই বলে আমি কি সফটওয়্যার design, develope, না কি Networking নিয়ে কাজ করছি । আমি অবশ্যই সফটওয়্যার প্রযুক্তির বেশ কিছু বিষয় নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। আবার অনেকেই Networking নিয়ে কাজ করলেও, শুধু Networking course CCNA, Routing, Switching, OpenDX NPA, NDA, VOIP, IP জানা থাকলেই হয় না, অনেক রকম সফটওয়্যার নিয়ে অভিজ্ঞতা, আর প্রচুর Study করতে হয়, যা অনেকের কাছেই অজানা ।

একদিনে কেউ আলবার্ট আইনস্টাইন, নিউটন, Charles Babage  (কম্পিউটারের জনক), বিল গেট্‌স (Microsoft), Steve Jobs (Apple Inc.), Larry Page (Goggle) হতে পারে নাই, দীর্ঘ সম্য নিয়ে তারা আজ এমন নামী, দামি। আর আইনস্টাইন ও Charles Babage রা একদিনে কিছু করতে পারে নাই, দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করে একদিন তারা সফলতা নিয়ে আসে ।

কিছু উদাহরণ দিচ্ছি —

ডাস্টিন মোসকোভিজ – সহপ্রতিষ্ঠাতা, আসানা

 ই-মেইল ছাড়া সহজে সামাজিক যোগাযোগের সাইট ব্যবহারের সুযোগ নিয়ে চালু হয় আসানা। আর মানুষের মস্তিষ্ক ঠিক কীভাবে কাজ করে, সে বিষয় নিয়ে রয়েছে ভিিকউরিয়াস সিস্টেম। রয়েছে গুড ভেঞ্চার নামের ফাউন্ডেশন। এমন উদ্যোগগুলোর প্রতিষ্ঠাতা ডাস্টিন মোসকোভিজ (২৯)। বর্তমানে ৮০ জন কর্মী কাজ করছেন আসানায়, যার ইতিমধ্যে আয় তিন কোটি ৮২ লাখ ডলার ছাড়িয়েছে। এ ছাড়া গুড ভেঞ্চারে অর্থের পরিমাণ পাঁচ কোটি পাঁচ লাখ ডলার এবং ছয়জন কর্মী নিয়ে পরিচালিত ভিকিউরিয়াস সিস্টেমের বর্তমান আয় ছয় কোটি ডলার। ১৯৮৪ সালে জন্ম ডাস্টিনের। তালিকায় আছেন তৃতীয় স্থানে।

ক্রিস্টিয়ান টাইটোস – সাবেক নির্বাহী পরিচালক ও পরামর্শক, গালর্স হু কোড

 প্রযুক্তি-দুনিয়ায় আধিপত্য যাতে শুধু পুরুষদেরই না হয়, সে জন্য তরুণীদের নিয়ে শুরু করেন গালর্স হু কোড নামের বিশেষ উদ্যোগ। তথ্যপ্রযুক্তিতে নারীদের আগ্রহী করে তুলতে শিক্ষা, আগ্রহ ইত্যাদি বিষয়ে কাজ করেন ক্রিস্টিয়ান টাইটোস (২৯)। বর্তমানে নিজেই ক্রিস্টিয়ান টাইটোস কনসাল্টিং নামের একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। যেখানে পরিকল্পনা, ব্যবস্থাপনা, আর্থিক সুবিধার বিষয় এবং যোগাযোগ কার্যক্রমগুলোয় নারীদের সহায়তা করছেন। তালিকার পাঁচ নম্বরে আছেন তিনি।

Advertisements